Previous
Next

সর্বশেষ

03 December 2019

সাদা চামড়ার খ্রিষ্টান ফাদার ডাক্তার-রা সেবার মোড়কে ধর্মান্তরের প্রোজেক্টে আছে

সাদা চামড়ার খ্রিষ্টান ফাদার ডাক্তার-রা সেবার মোড়কে ধর্মান্তরের প্রোজেক্টে আছে


এএল‌এম ফজলুর রহমান।। মধুপুর জঙ্গলের অভ্যন্তরে একটি আমেরিকান মিশনে গিয়েছিলাম ১৯৮৯/৯০ সালে। ওখানে তখন মানুষের বাচ্চা কিনতে পাওয়া যেতো। মূল্য ছিল ৪০০ টাকা। আমাদের কোনো ছেলে সন্তান নাই। তাই আমার স্ত্রী আগ্ৰহী ছিলেন একটি ছেলে বাচ্চা যদি পাওয়া যায়।

প্রথমবার ফাদার আমাদের বেশ কিছু গাছের চারা দিয়ে বিদায় করলেন। ওখানে তখন দেখলাম এভোকাডো ফলবতী গাছ। ফাদার বললেন, গাছ দুটোর ফল হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল কিনে নিয়েছে ৪০,০০০ টাকায়। দেখলাম ৪০ প্রকারের আমের চারাগাছ। এর মধ্যে আমেরিকান আমও আছে। কোকো ফলের গাছ আমাকে দিয়েছিলেন বেশ কয়েকটা।

আমরা ফিরে এসেছিলাম চারাগাছ নিয়ে। তখন আমার পোস্টিং ছিল ঘাটাইল সেনানিবাসে। পরে আবার আমরা গিয়েছিলাম মধুপুর জঙ্গলের আমেরিকান মিশনে। ফাদারকে মনে করিয়ে দিলাম ছেলে বাচ্চার কথা। এবারে ফাদার আমাদের হতাশ করে বললেন ছেলে বাচ্চা পাওয়া যাবে না। তাঁর বডি ল্যাঙ্গুয়েজ বলছিল তিনি আর্মির কাছে বাচ্চা বিক্রি করবেন না।

এখন এতো বর্ষ পরে খোঁজ নিয়ে দেখেন, মধুপুরের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর মানুষদের কয়জন নিজ ধর্মে আছে? এরা এখন আমেরিকান ফাদার ও চার্চের সেবার ঠেলায় প্রায় সবাই খৃষ্ট ধর্ম গ্ৰহন করেছে।

আমি অধম এই সব সাদা চামড়ার সেবাঅন্ত প্রাণ ফাদার, ডাক্তার আর চার্চের প্রশংসা কি করে করি বলেন? যারা আমাদের দেশের সহজ সরল মানুষদের ভুল বুঝিয়ে ধর্ম হারা করছে! সমানে খৃষ্টান বানাচ্ছে।

দোষ আমাদের‌ই। ইহুদী, খৃষ্টানদের বুদ্ধিতে আজ আমাদের তবলীগ জামাত মুসলমানদের ইসলামে কনভার্ট করছে। এরা এখন আর অমুসলিমদের কাছে ইসলাম প্রচারের জন্য যায় না। এরা যাচ্ছে মুসলমানদের কাছে ইসলাম প্রচার করতে। হারাম হালাল, ফরজ, ওয়াজিব আর নফল শিক্ষা দিতে। তবলীগীদের যুক্তি মুসলমানদের সংখ্যা বাড়িয়ে লাভ নাই। কোয়ালিটি মুসলমান বানাতে হবে। আর এই সুযোগে ফাঁকা মাঠে তাই খৃষ্টানরা গোল দিচ্ছে। খৃষ্টান ধর্মে ধর্মান্তরিত করছে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর সরল মানুষদের।

লেখকঃ প্রাক্তন মহাপরিচালক, বিডিআর
নামাজ যেমন ফরজ ইসলামী রাজনীতিও তেমন ফরজঃ আমীরে চরমোনাই!

নামাজ যেমন ফরজ ইসলামী রাজনীতিও তেমন ফরজঃ আমীরে চরমোনাই!


স্টাফ রিপোর্টার।। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা অনুসারীদের নিয়ে আখেরি মোনাজাতোর মাধ্যমে চরমোনাইইয়ের অগ্রহায়ন মাসের তিন দিনের বার্ষিক মাহফিলের সমাপ্তি হয় গত ২৯ নভেম্বর। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী সৈয়দ মুহম্মদ রেজাউল করীম বাদ ফজর বয়ানের পরে সমবেত অনুসারীদের নিয়ে আখেরী মোনাজাত পরিচালনা করেন। গত মঙ্গলবার বাদ জোহর বয়ানের মাধ্যমে আমিরে চরমোনাই এ মাহফিলের সূচনা করেছিলেন। চরমোনাইয়ে বাদ ফজর বয়ানের পরে সমবেত অনুসারীদের নিয়ে আখেরী মোনাজাত পরিচালনা করেন। গত মঙ্গলবার বাদ জোহর বয়ানের মাধ্যমে আমিরে চরমোনাই এ মাহফিলের সূচনা করেছিলেন। শুক্রবার বাদ ফজর এবারের মাহফিলের শেষ বয়ানে আমিরে চরমোনাই বলেন,

নামাজ যেমন ফরজ, ইসলামী রাজনীতিও তেমন ফরজ। তবে রাজনীতি এখন কিছু লোকের পুঁজিতে পরিনত হয়েছে। রাজনীতি করে একদল মানুষ কলাগাছ নয় বরং রাতারাতি বটগাছ বনে গেছে। এই রাজনীতির জন্য আমিরে চরমোনাইয়ের এর নামে ১৮টি মামলা হয়েছে। কিন্তু তিনি হক্বের আওয়াজ তোলা থেকে বিরত হননি।

আমিরে চরমোনাই আরো বলেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ আদর্শ বিসর্জন দিয়ে রাজনীতি নয় বরং আদর্শকে আঁকড়ে ধরে ইবাদাতের রাজনীতি করে। মহান আল্লাহ ও উনার রাসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের নীতি আদর্শ বাস্তবায়নের লক্ষে আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ অংশগ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আমিরে চরমোনাই বলেন, একদল আলেম নিজেদের দুর্বলতাকে ঢেকে রাখার জন্য অন্যের সমালোচনা করে। আমি কুরআন হাদীসের উপর চলার চেষ্টা করে আপনাদেরকেও কুরআন হাদীসের নির্দেশিত পথে চলতে আহ্বান করি। তারপরেও যদি আপনারা দেখেন আমি কুরআন-সুন্নাহর বিরুদ্ধে চলতে বলি তবে তা আমাকে দেখিয়ে দিলে আমি সংশোধন করে নেব।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী সৈয়দ মুহম্মদ রেজাউল করীম চরমোনাই আখেরী মুনাজাতে বাংলাদেশে শান্তি প্রতিষ্ঠা ও মুসলিম উম্মাহর সামগ্রিক কল্যাণ এবং রোহিঙ্গা, ফিলিস্তিন, সিরিয়া, কাশ্মীর সহ নির্যাতিত মুসলমানদের মুক্তির জন্য খাছভাবে দোয়া করেন।

02 December 2019

পরহেজগার ধার্মিক লোকেরাই উগ্রবাদী সন্ত্রাসী, এদের প্রতি নজর রাখতে হবেঃ শিল্পমন্ত্রী

পরহেজগার ধার্মিক লোকেরাই উগ্রবাদী সন্ত্রাসী, এদের প্রতি নজর রাখতে হবেঃ শিল্পমন্ত্রী


স্টাফ রিপোর্টার।। শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন বলেছে, অতি ধার্মিক লোকদের প্রতি নজর রাখতে হবেযাতে করে এর নেপথ্যে কোনো অপশক্তি গড়ে উঠতে না পারেকারণ ধর্মীয় অনুভূতিকে কাজে লাগিয়ে এইসব উগ্রবাদীরা দেশে বিশৃঙ্খলা করেগুলশানের হলি আর্টিজেনে হামলার ঘটনা তারই প্রমাণ

শুক্রবার (২৯ নভেম্বর) দুপুরে নরসিংদীর বেলাব উপজেলার উয়ারী-বটেশ্বর পশ্চিমপাড়া গ্রামে একটি প্রত্নতাত্ত্বিক জাদুঘরের নির্মাণ প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনকালে তিনি এসব কথা বলেনরসিংদী জেলা পরিষদ প্রায় ৭ কোটি ৮ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করতে যাচ্ছে গঙ্গাঋদ্ধি নামের এই জাদুঘরটি

নেতাকর্মীদের হুশিয়ার করে শিল্পমন্ত্রী বলে, দলের নেত্রীবৃন্দের মধ্যে কোন বিভাজন মেনে নেওয়া হবে নাব্যক্তিগত স্বার্থে একে অপরের বিরুদ্ধে কাদা ছোড়াছুড়ি করলে দলীয় ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হবেউন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হবেগ্রুপিংয়ের কারণে উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হলে কাউকে ক্ষমা করা হবে না

সে আরো বলে, উয়ারী বটেশ্বর এই অঞ্চলের সমৃদ্ধ ইতিহাসের ধারকএর মাধ্যমে প্রমাণ হয় এই অঞ্চল বহু বছর আগে থেকেই ব্যবসা বাণিজ্যের জন্য সমৃদ্ধ ছিলসেই উজ্জল ইতিহাসকে নতুন প্রজন্মের নিকট তুলে ধরবে গঙ্গাঋদ্ধি জাদুঘরএ থেকে ব্যবসা বাণিজ্য ও শিল্পে উৎসাহিত হবে ভবিষ্যত প্রজন্ম

অনুষ্ঠানে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, নরসিংদী ২ আসনের সাংসদ আনোয়ারুল আশরাফ খান দিলিপ, নরসিংদী ৩ আসনের সাংসদ জহিরুল হক ভূঁইয়া মোহন, ঐতিহ্য অন্বেণের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ড. নূহ-উল-আলম লেলিন, পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান রাম চন্দ্র দাস, জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন, পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আনোয়ারুল নাসের ও নরসিংদী পৌর মেয়র কামরুজ্জামান কামরুল
নবীর জন্মদিনের মতো জঘন্য বিদআতে লিপ্ত হবেন নাঃ আহমদ শফি

নবীর জন্মদিনের মতো জঘন্য বিদআতে লিপ্ত হবেন নাঃ আহমদ শফি

ছবিঃ আহমদ শফি, কপিরাইট; প্রেস বাংলা এজেন্সি।
স্টাফ রিপোর্টার।। আপনারা শিরক বেদআত থেকে দূরে থাকবেন। ঈদে মিলাদুন্নবীর(নবীর জন্মদিন) মতো জঘন্য বিদআতে লিপ্ত হবেন না। কারণ বেদআত করলে তওবা নসীব হয় না। ‌হিংসা করবেন না। সুদ-ঘুষ খাবেন না। চুরি-ডাকাতি করবেন না। জিনা ব্য‌ভিচার করবেন না। মস‌জিদ-মাদরাসা ও আলেম সমাজকে মুহাব্বত করবেন। তাদের পরামর্শে জীবন প‌রিচালনা করবে।

উত্তর চট্টলার আল আমিন সংস্থার ৩দিনব্যাপি তাফসীরুল কুরআন মাহফিলের সমাপনী দিবসে শুক্রবার(২৯ নভেম্বর) প্রধান অতিথির বক্তব্যে হেফাজতের ইসলাম বাংলাদেশের আমীর, দারুল উলূম হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালক শাহ আহমদ শফী একথা বলেছে।

মুহম্মদ আহসান উল্লাহ ও ইবরা‌হিম খ‌লিল সিকদারের যৌথ সঞ্চালনায় মাওলানা মাহমুদুল হাসান, মাওলানা শেখ আহমদ, মাওলানা ইদরীস ও মাওলানা আনাস মাদানীর ধারাবা‌হিক সভাপ‌তি‌ত্বে অনু‌ষ্ঠিত তাফসীর মাহ‌ফিলের সমাপ‌নী দিবস অনু‌ষ্ঠিত হয়।
ছবি কপিরাইটঃ প্রেস বাংলা এজেন্সি।

01 December 2019

ইরাকে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে নিহত চার শতাধিক প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ! (ভিডিও)

ইরাকে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে নিহত চার শতাধিক প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ! (ভিডিও)


আন্তর্জাতিক ডেস্ক।। মধ্যপ্রাচ্যের মুসলিম অধ্যুষিত যুদ্ধবিধ্বস্ত ইরাকে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে গত দুই মাসে প্রায় চার শতাধিক লোকের প্রাণহানি হয়েছে। তাছাড়া আহত হয়েছে আরও কমপক্ষে হাজারখানেক। যদিও এরই মধ্যে গোটা দেশে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন স্থানীয় শিয়াপন্থি জ্যেষ্ঠ নেতা মুকতাদা আল সদর।

বিবিসি নিউজ জানায়, বিক্ষোভে উত্তাল ইরাকে গত দুই মাস যাবত প্রায় চার শতাধিক লোকের প্রাণহানির পর হঠাৎ পদত্যাগের ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী আবদেল আবদুল মাহদির। যদিও এর মাত্র কয়েক ঘণ্টার মাথায় সমর্থকদের প্রতি আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান শিয়াপন্থি জ্যেষ্ঠ নেতা মুকতাদা আল সদর।

শুক্রবার (২৯ নভেম্বর) সরকারের ওপর চাপ বৃদ্ধির অংশ হিসেবে ইরাকি জনগণকে সড়কে থাকার নির্দেশ দেন তিনি। এ সময় বিক্ষোভকারীদের ভবিষ্যৎ সরকারে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য একজন প্রার্থীর পক্ষে একমত হওয়ার আহ্বান জানান পার্লামেন্টের সাইরুন ব্লকের শিয়াপন্থি এই নেতা।

মুকতাদা বলেন, ‘গত দুই মাস যাবত চলা এই আন্দোলনের প্রথম সাফল্য হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী মাহদির পদত্যাগ। এবার জাতিগত ও সাম্প্রদায়িকতার বিষয় বিবেচনা করে নতুন মন্ত্রিসভাকে নিয়োগ দিতে হবে।

গত অক্টোবরের ১ তারিখ দেশটিতে চাকরির ব্যবস্থা, দুর্নীতি বন্ধ এবং আরও উন্নত জনসেবার দাবিতে বাগদাদে সরকারবিরোধী আন্দোলন শুরু হয়। এরপর তা দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন শহরে ছড়িয়ে পড়ে। ইরাকের এই সরকারবিরোধী বিক্ষোভে এখন পর্যন্ত চার শতাধিক লোকের প্রাণহানি হয়েছে। তাছাড়া আহত হয়েছেন আরও কমপক্ষে হাজারের অধিক বেসামরিক নাগরিক।