Previous
Next

সর্বশেষ

18 June 2018

বিডিনিউজের ওয়েবসাইট বন্ধের নির্দেশ

বিডিনিউজের ওয়েবসাইট বন্ধের নির্দেশ


আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ আকস্মিকভাবে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের ওয়েবসাইট বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়েছেসরকারের ওপর মহলের নির্দেশে এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে বিটিআরসির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সোমবার বিকালে মোবাইল ফোন ও আইআইজি অপারেটরগুলোকে পাঠানো এক ই-মেইলে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের ওয়েবসাইটের লিংক বন্ধ করতে নির্দেশনা পাঠায় টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি

কমিশনের জ্যেষ্ঠ সহকারী পরিচালক তৌসিফ শাহরিয়ারের পাঠানো ওই ই-মেইলে দুটি লিংকগুলো তৎক্ষণাৎ ব্লক করার নির্দেশনা দেয়া হয়সেগুলো হলো https://www.bdnews24.com/ এবং https://m.bdnews24.com/

এরপর আরেকটি ই-মেইলে https://bangla.bdnews24.com/ বন্ধের নির্দেশনাও দেয়া হয় বিষয়টি নিয়ে যোগাযোগ করা হলে বিটিআরসির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জহুরুল হক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, বিটিআরসি নির্দেশনা দিয়েছে সরকারের ওপর মহলের নির্দেশেকী কারণে- জানতে চাইলে সে বিষয়ে কিছু বলতে রাজি হননি জহুরুল হক

সারা দেশে এবং বিদেশের প্রধান প্রধান শহরগুলো মিলিয়ে ৫০০ শতাধিক সংবাদকর্মী রয়েছেন এ পোর্টালটির

প্রতিবেদনটি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম থেকে নেয়া
আফগানিস্তানে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ১৮

আফগানিস্তানে আত্মঘাতী হামলায় নিহত ১৮


আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ আফগানিস্তানের নানগরহর প্রদেশের জালালাবাদে আত্মঘাতী বোমা হামলায় অন্তত ১৮ জনের প্রাণহানিসহ কয়েক ডজন মানুষ আহত হয়েছেন

রোববার (১৭ জুন) জালালাবাদ শহরে আঞ্চলিক গর্ভনর কার্যালয়ের সামনে এ বোমা বিস্ফোরণ ঘটানো হয়

একই প্রদেশে ঈদের জমায়েতে আত্মঘাতী বোমা হামলায় সাধারণ মানুষ, সরকারি বাহিনী ও তালেবান সদস্যসহ ৩৬ জন নিহত হওয়ার ঘটনার একদিন পর জালালাবাদে এ আত্মঘাতি বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে

এখন পর্যন্ত কোনো গ্রুপই রোববারের বোমা হামলার দায় স্বীকার দ‍ায় নেয়নিতবে শনিবারের বোমা হামলা আইএসর আফগান শাখা চালিয়েছে বলে সংগঠনটির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে

নানগরহর প্রদেশের স্বাস্থ্য পরিচালক নজিবুল্লাহ কামাওয়াল সংবাদ মাধ্যকে বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, রোববারের বোমা হামলায় ১৮ জন নিহত হয়েছেন এবং আহত হয়েছে ৪৯ জন

আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর রয়েছেমৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেও জানান তিনি
গুয়েতেমালায় উদ্ধার কাজ বন্ধ, এ পর্যন্ত নিহত ১১০

গুয়েতেমালায় উদ্ধার কাজ বন্ধ, এ পর্যন্ত নিহত ১১০


আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ গুয়েতেমালার ফুয়েগোঅগ্ন্যুৎপাতে নিখোঁজদের উদ্ধার কার্যক্রম বন্ধ করা হয়েছে

রোববার (১৭ জুন) বিবৃতিতে এ তথ্য জানায় দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ কনরেড আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে, ‘ফুয়েগোঅগ্ন্যুৎপাতে এখন পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১১০ জনএছাড়া নিখোঁজ রয়েছেন ১৯৭ জন

তারা আরও জানায়, এসকুইন্টলা শহরের সান মিগুয়েল লস লোটেস ও এল রোদেও অঞ্চলে নিখোঁজদের উদ্ধার কার্যক্রম চূড়ান্তভাবে স্থগিত করা হয়েছেএই অঞ্চলটি এখন বসবাস অযোগ্য এবং খুবই ঝুঁকিপূর্ণ

এসকুইন্টলা শহরে ১২টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছেযেখানে প্রায় ২৮০০ জন আশ্রয় নিয়েছেনপার্শ্ববর্তী অঞ্চলের কেন্দ্রগুলোতে আশ্রয় নিয়েছেন আরও ৭৭০ জন

গত ৩ জুন গুয়েতেমালার রাজধানীর ৪৪ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে ফুয়েগো নামের এই আগ্নেয়গিরিটি জেগে ওঠেপরে চারদিক ছড়িয়ে পড়তে থাকে ছাইআগ্নেয়গিরির লাভা-ছাইয়ে আক্রান্ত হতে থাকে বারানকাস দে সেনিজাস, মিনারেল, সেকা, তানিলুয়া, লাস লাজাস, বারানকা হোন্ডাসহ অনেক জনপদ

জানা গেছে, এই আগ্নেয়গিরিতে সর্বপ্রথম ১৯৭৪ সালে অগ্ন্যুৎপাত হয়তারপর থেকে নিয়মিত বিরতিতে এর লাভা-ছাই ছড়াতে থাকে
মৃত মায়ের কফিনের নিচে চাপা পড়ে সন্তানের মৃত্যু (ভিডিওসহ)

মৃত মায়ের কফিনের নিচে চাপা পড়ে সন্তানের মৃত্যু (ভিডিওসহ)

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ইন্দোনেশিয়ার দক্ষিণ সোলাওয়েসির উত্তর তারোজা এলাকায় এক শেষকৃত্যের অনুষ্ঠানে মায়ের কফিনের নিচে চাপা পড়ে মারা গেছে সামেন কুনদুরুয়া নামে এক ব্যক্তিখবর মিরর ডট কমের। 

গেলো শুক্রবার মায়ের শেষকৃত্যের সময় শববাহকদের হাত থেকে পিছলে কফিন পড়ে গিয়ে মাথায় গুরুতর আঘাত পান কুনদুরুয়া মিররের প্রতিবেদনে বলা হয়, ইন্দোনেশিয়ার শেষকৃত্য অনুষ্ঠানকে বলা হয় লাক্কেয়ানএই ঐতিহ্যবাহী শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে মৃত মানুষের মরদেহকে কফিনে করে একটি কাঠের ঘরে সংরক্ষণ করে রাখা হয়ওই কাঠের ঘরে মৃত ওই নারীকে নিয়ে যাচ্ছিলেন ১২ জন শববাহকশববাহকদের মধ্যে নারীর সন্তানও ছিলেন

কফিন তুলতে গিয়ে বাঁশ দিয়ে বানানো সিঁড়ি ভেঙে মাথায় গুরুতর আঘাত পান ওই নারীর সন্তানপরে হাসপাতালে নেয়ার পথে কুনদুরুয়া মারা যান বলে নিশ্চিত করা হয়েছে

হৃদয়বিদারক এ দৃশ্যটি তৎক্ষণাৎ ক্যামেরায় ধারণ করা হয়পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে যায় সর্বশেষ খবরে জানা যায়, কুনদুরুয়াকে তারা মা বার্থার পাশে সমাহিত করা হয়েছে


স্থানীয় তানা তারোজা রিসোর্ট পুলিশের চিফ কমিশনার জুলিয়ান্তো সিরেইত বলেন, মায়ের কফিন লাক্কিয়ানে উঠানোর সময় বাঁশ দিয়ে বানানো মই ভেঙে যায় এবং ভিকটিম আঘাত পান

ভারতে ‘পাকাপাকিভাবে’ বন্ধ হচ্ছে হোয়াটসঅ্যাপ

ভারতে ‘পাকাপাকিভাবে’ বন্ধ হচ্ছে হোয়াটসঅ্যাপ


আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ সাধারণ মানুষের কাছে যা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যোগাযোগের মাধ্যম, সেটাই এখন সন্ত্রাসীদের প্রথম পছন্দের অ্যাপফলে সেটিই এখন ভারত সরকারের সবচেয়ে বড় মাথাব্যথাকারণ দেশের সুরক্ষা, নিরাপত্তা, সার্বভৌমত্ব এখন চ্যালেঞ্জের মুখে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে হোয়াটসঅ্যাপখবর সংবাদ প্রতিদিনের

স্মার্টফোনের এই গুরুত্বপূর্ণ অ্যাপটির তথ্য বা বার্তা আদান-প্রদানে নজরদারি চালানো সরকারের কাছে কঠিন সমস্যা হয়ে দেখা দিয়েছেপ্রযুক্তিগত বা পরিকাঠামোগত সমস্যার চেয়েও বড় সমস্যা হলো, অ্যাপটির এমন কিছু নিজস্ব বৈশিষ্ট্য আছে যা বদলানো অসম্ভব বা তথ্য আদান-প্রদানে প্রতি সেকেন্ডের নজরদারিও প্রায় অসম্ভবএই সুযোগে দেশবিরোধী শক্তিগুলো, সন্ত্রাসীরা, সমাজবিরোধীরা তথ্য আদান-প্রদানের স্বাধীনতার পুরো ফায়দা তুলছেনিজেদের ও সাংগঠনিক স্বার্থসিদ্ধি করতে চূড়ান্ত অপব্যবহার করছে হোয়াটসঅ্যাপেরতাই তা নিষিদ্ধ করার কথা ভাবছে ভারত সরকার

সরকারের পক্ষ থেকে চেষ্টা করা হচ্ছিল যাতে হোয়াটসঅ্যাপে লেনদেন হওয়া তথ্য, ছবি, ভিডিও যদি ফিল্টার বা সেন্সর করা যায়কিন্তু মেসেজ এন্ড টু এন্ড এনক্রিপ্টেড হওয়ায় সেটার কোনও উপায় নেইএজন্য ঝামেলা এড়াতে হোয়াটসঅ্যাপের ব্যবহার ভারতে পাকাপাকিভাবে বন্ধ করে দেয়ার কথা ভাবছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়এ ব্যাপারে তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় খুব গুরুত্বের সঙ্গে চিন্তাভাবনা করছে বলে জানা গেছে

সম্প্রতি কাশ্মীরে হিংসা, অশান্তি জিইয়ে রাখতে দেশবিরোধী শক্তিগুলো হোয়াটসঅ্যাপকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছেচলতি মাসেই মেঘালয়ের শিলংয়ে কয়েকদিন ধরে চলতে থাকা গোষ্ঠী সংঘর্ষে উসকানি দিতে হোয়াটসঅ্যাপকে যথেচ্ছ ব্যবহার করা হচ্ছেগুজব ছড়িয়ে ও উসকানির মাধ্যমে দাঙ্গা, অশান্তি, হিংসা বাধাতে এখন ব্যবহার করা হচ্ছে হোয়াটসঅ্যাপকেইতাই নিরুপায় হয়ে ফেসবুকের মেসেজিং অ্যাপ হোয়াটসঅ্যাপকে নিষিদ্ধকরার কথাই ভাবছে কেন্দ্রীয় সরকার

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০১৬ সালে কাশ্মীরে নাগরোটা সেনা ক্যাম্পে হামলা চালিয়েছিল জইশ-ই-মোহাম্মদ জঙ্গিরাহামলায় সাত সেনাসদস্য নিহত হয়তদন্তে জানা যায়, অনুপ্রবেশের পর পাকিস্তান থেকে হোয়াটসঅ্যাপে কলের মাধ্যমে পাক গোয়েন্দাদের কাছ থেকে নিয়মিত নির্দেশ পাচ্ছিল জঙ্গিরাকখন কোথায় কীভাবে কোন কৌশলে হামলা চালাতে হবে, কোথায় পজিশন নিতে হবে সবই জানান দিচ্ছিল তারা ওই হামলায় হতাহতের সংখ্যার হিসেবে যত বড় ক্ষতি হয়েছিল, তার চেয়েও বেশি ক্ষতি হয় মানসিক দিক থেকেভারতীয় সেনাবাহিনীর মনোবল ভেঙে দিতে চেয়েছিল পাকিস্তান মদদপুষ্ট জঙ্গিরা

কেন্দ্রীয় টেলিকম মন্ত্রণালয় এবং তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ও এ ব্যাপারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ব্যাখ্যার সঙ্গে একমততাহলো  দেশ, সমাজ ও নাগরিকদের নিরাপত্তার পক্ষে বিপজ্জনক হয়ে উঠছে হোয়াটসঅ্যাপদেশবিরোধী, উসকানিমূলক, জঙ্গি কাজকর্ম সংক্রান্ত বিপজ্জনক বার্তা, তথ্য রুখে দেয়ার কোনও উপায় হোয়াটসঅ্যাপে নেই এজন্য সরকার এমন কোনও কঠোর আইন আনতে চাইছে, যে আইনের নির্দেশে হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ বাধ্য থাকবে যে কোনও স্পর্শকাতর তথ্য বা বার্তা ভারত সরকার যখন চাইবে তখনই সরকারকে শেয়ার করতেভারত সরকারের নির্দেশ বা আইন না মানলে হোয়াটসঅ্যাপকে নিষিদ্ধ করা হবে


ঠিক এ কারণেই পশ্চিম এশিয়ার মুসলিম দেশগুলোতে হোয়াটসঅ্যাপের ভয়েস ও ভিডিও কলিং নিষিদ্ধচীনে ফেসবুক ও হোয়াটসঅ্যাপ দুটোই নিষিদ্ধচীনারা উইচ্যাটে কাজ চালানতাই হোয়াটসঅ্যাপ সরকারের কথা না শুনলে চীন বা আরব দেশগুলোর পথে হাঁটতে পারে ভারত সরকারও