08 February 2018

আজ পবিত্র ২২ শে জুমাদাল উলা শরীফ, মুসলিম উম্মাহ কি অবগত?


ইসলামিক ডেস্কঃ আজ পবিত্র জুমাদাল উলা শরীফ মুসলিম উম্মাহর এক বিশেষ দিন। আজকের এই দিনেই উম্মুল মুমিনিন হযরত খাদিজাতুল কুবরা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহার সাথে রাসুলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তিনি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। প্রথমে হযরত খাদিজাতুল কুবরা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা পিতৃব্য আমর ইবনে আসাদের মাধ্যমে রাসুলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে উনার সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার প্রস্তাব করেনকিন্তু রাসুলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি স্বভাবসূলভ লজ্জাবশত, নীরবতার মাধ্যমে এ প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন

এর কিছুদিন পর এক রাতে হযরত খাদিজাতুল কুবরা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা তিনি স্বপ্নে দেখেন যে, সূর্য একটি আলোর পিণ্ডরূপে উনার গৃহে পতিত হয়এ আলোতে সমগ্র পবিত্র মক্কা শরীফ নগরী আলোকিত হয়ে উঠেএ স্বপ্নের ব্যাখ্যা জানার জন্য তিনি স্বপ্নের তাবিরবীদগণের সঙ্গে আলোচনা করেনতাঁরা উল্লেখ করেন, এই জামানার সর্বচ্চো মর্যাদা সম্পন্ন ব্যক্তির সঙ্গে আপনার শুভ পরিণয় ঘটবে

এ স্বপ্ন দেখার পরদিনই তিনি রাসুলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের নিকট পুনরায় বিবাহের প্রস্তাব প্রেরণ করেনএ প্রস্তাবে হযরত খাদিজাতুল কুবরা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা তিনি উল্লেখ করেন যে, আমি দাম্পত্য সম্পর্কে আবদ্ধ হতে চাই এ কারণে যে, আপনি আমার বংশগত আত্মীয়আপনার পারিবারিক ঐতিহ্য, ব্যক্তিগত বিশ্বস্ততা, আন্তরিকতা, সংযত স্বভাব, সত্যবাদিতা ইত্যাদি সকলেরই শ্রদ্ধা উৎপাদন করে। এবার আর রাসুলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম উনার এই সম্মানিত প্রস্তাব ফিরিয়ে না দিয়ে তা সাদরে গ্রহণ করেন। 

বিবাহের জন্য নির্ধারিত দিনে আবূ তালিব স্বীয় ভাই হযরত হামযা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুসহ হাশিমী গোত্রের নেতৃস্থানীয়দের নিয়ে হযরত খাদিজাতুল কুবরা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা উনার বাড়িতে গমন করেনতখন হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বয়স ছিল ২৫ বছরবিবাহ অনুষ্ঠিত হয় আনুষ্ঠানিক নুবুওওয়াত প্রকাশের ১৫ বছর পূর্বে এ বিবাহ সম্পাদনকালে উম্মুল মুমিনীন হযরত খাদিজাতুল কুবরা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা এর অভিভাবক ছিলেন উনার পিতৃব্য আমর ইবনে আসাদএ বিবাহের মোহরানা নির্ধারিত হয় ৫০০ দিরহাম। রাসুলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি স্বয়ং বিশটি উট বিক্রয় করে এ বিবাহের মোহরানা আদায় করেন

বিবাহের পর হযরত খাদিজা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা উনার অফুরন্ত ধন ভাণ্ডার রাসুলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের খেদমতে স্বেচ্ছায় হাদিয়া করে দেনসর্বপ্রথম যেদিন রাসুলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে সাক্ষাৎ সংঘটিত হয়, সেদিন তিনি রাস্তায় প্রতি ক্বদমের নিচে স্বর্ণের প্লেট বিছিয়ে দিয়ে সাদর সম্ভাষণ জানানসুবহানাল্লাহ! ইহা চিরন্তন সত্য কথা যে, সমস্ত কায়িনাতের মুসলিম উম্মাহর সম্মানিত মা, উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত খাদিজাতুল কুবরা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা উনার মুহব্বত, সন্তুষ্টিই মূলত রাসূলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এবং মহান আল্লাহ পাক উনাদেরই মুহব্বত, সন্তুষ্টিরই অন্তর্ভুক্তসুবহানাল্লাহ!

উম্মুল মুমিনীনসাইয়্যিদাতুনা হযরত খাদিজাতুল কুবরা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা তিনি আল্লাহ পাক এবং রাসুলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের সাথে অবিচ্ছদ্যভাবে মিশে আছেনসুবহানাল্লাহ!!!


শেয়ার করুন

0 facebook: