16 January 2019

অবশেষে ইসলাম অবমাননাকর ছায়াছবি ‘শনিবার বিকেল’ নিষিদ্ধ করেছে সরকার


স্টাফ রিপোর্টঃ চলতি বছরের ছায়াছবির তালিকায় থাকা মোস্তফা সরোয়ার ফারুকীর ইসলাম অবমাননাকর মুভি শনিবার বিকেল। কিন্তু অনালাইন ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের ক্ষোভ ভাইরাল হলে সেন্সরের চৌকাঠ পেরোনের আগেই ছায়াছবিটি বাংলাদেশে ব্যান করা হল।

চ্যানেল আই অনলাইনকে শনিবার বিকেলএর ব্যান হওয়ার খবরটি নিশ্চিত করেছেন সেন্সর বোর্ডের সদস্য ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ।

তিনি বলেন, মঙ্গলবার (১৫ জানুয়ারি) দ্বিতীয় বারের মতো শনিবার বিকেলছবিটি প্রদর্শনের আয়োজন করে সেন্সর বোর্ড। এর আগেও গত সপ্তাহে সেন্সর বোর্ডে ছবিটির প্রদর্শনীর আয়োজর করা হয়। কিন্তু গতকাল ছবিটি দেখার সময় সচিবসহ সেন্সর বোর্ডের প্রায় সবাই উপস্থিত ছিলেন।

অন্য নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায় ছবি প্রদর্শনী শেষে সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়, ‘শনিবার বিকেলমুক্তি পেলে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হবে এবং ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানবে যা নতুন সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করবে। সেজন্য সেন্সর ছাড়পত্র স্থগিত করা সহ ছবিটি ব্যানকরার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। -বলছিলেন নওশাদ।

এ বিষয়ে পরিচালক কিংবা প্রযোজককে আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়েছে কিনা জানতে চাইলে নওশাদ বলেন, তাদেরকে চিঠির মাধ্যমে জানানোর কথা। সম্ভবত এরইমধ্যে চিঠি তাদের কাছে পৌঁছে গেছে।

নওশাদের সাথে কথা বলে শনিবার বিকেলব্যান হওয়া বিষয়টি নিয়ে যোগাযোগ করা হয় ছবির নির্মাতা ফারুকীর সাথে।

চ্যানেল আই অনলাইনকে তিনি বলেন, সেন্সর বোর্ডে শনিবার বিকেলস্ক্রিনিং হয় ৬/৭ দিন আগে। ছবিটি প্রদর্শনীর পর অফিশিয়ালি ফোন করে সেখান থেকে আমাকে জানানো হয় যে ছবিটি তাদের পছন্দ হয়েছে। তবে ছবি শেষে একটা সুপার(টেক্সট) দিতে হবে। এটাও আমাকে আনুষ্ঠানিক ভাবে চিঠিতে জানানোর কথা, সে অপেক্ষায় আছি।

কিন্তু ছবিটিতো দ্বিতীয় স্ক্রিনিংয়ের পর সেন্সরবোর্ড থেকে ব্যানকরা হয়েছে। বলা হয়েছে, এটি মুক্তি পেলে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হবে। এ বিষয়ে আপনার কোনো বক্তব্য আছে কিনা?

এমন প্রশ্নে ফারুকী বলেন, আমারতো মনে হয় ছবিটি দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার কোনো সুযোগ নেই, বরং ভাবমূর্তি বাড়ার কথা। যাইহোক, আপাতত এই বিষয়ে কিছু না বলি। আনুষ্ঠানিক ভাবে চিঠি এখনো পাইনি।

২০১৬ সালে গুলশানে ঘটে যাওয়া হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলা নিয়েই এ ছবির প্লট, তবে সেখানে ইসলাম কে খারাপভাবে উপস্থাপন করার জন্য জাহিদ হাসানের মুখে দাড়ি আর তিশার মাথায় হিজাব ব্যবহার করা হয়েছে মর্মে অনলাইনে প্রতীবাদের ঝড় উঠে।


শেয়ার করুন

2 comments:

  1. আলহামদুলিল্লাহ!!!!ব্র

    ReplyDelete
  2. Muslima shorkar pokrito musolmaner porichoy dilo.dhonnobad


    ReplyDelete